১৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, সোমবার

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
Uncategorized
ইসলামী জীবন
ঔষধ ও চিকিৎসা
খাদ্য ও পুষ্টি
জানুন
নারীর স্বাস্থ্য
পুরুষের স্বাস্থ্য
ভিডিও
ভেসজ
যৌন স্বাস্থ্য
রান্না বান্না
লাইফ স্টাইল
শিশুর স্বাস্থ্য
সাতকাহন
স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য
স্বাস্থ্য খবর

শিরোনামঃ

শিরোনামঃ

ওজন বাড়ানোর পাঁচটি সহজ উপায়

অনেকেই আছেন যারা ওজন বাড়াতে চান। যারা প্রয়োজনের তুলনায় বেশি রোগা , যাদের শুকনো চেহারা। ভাবছেন, ইস কি ভালো! ওদের আর কষ্ট করে ওজন কমাতে হবে না! কিন্তু তারা চায় ওজন বাড়াতে। প্রয়োজনের তুলনায় শরির অতিরিক্ত রোগা, শুকনো হলে, দেখতে খুবই খারাপ লাগে। সব ড্রেস মানায় না। তাদের জন্য আজ আমদের আয়োজন। আপনার সমস্যার সমাধান জেনে নিন। কীভাবে বাড়াবেন ওজন।

১. উপযুক্ত খাবার: খুব খাচ্ছেন একটু যাতে শরিরে লাগে। কিন্তু কিছুই কাজ হচ্ছে না! এর কারণ আপনি সঠিক সময় সঠিক খাবার খাচ্ছেন না। যেমন, সকাল শুরু করুন বাদাম আর কিশমিশ দিয়ে। কাঠ বাদাম হলে ভালো হয়। কাঠ বাদাম ও কিশমিশ আগের দিন ভিজিয়ে রাখুন। সকালে দাঁত মেজে খেয়ে নিন। এটা রোজের রুটিন করে নিন। এর সাথে পুষ্টিকর খাবার। শাক-সবজি, ফল, সেই সঙ্গে ছানা। ডিম বেশি করে খেতে হবে। এগুলোতে ফ্যাট ও প্রোটিন থাকে। সবজির মধ্যে আলু, কুমড়া এসব বেশি খেলে ভালো। রাত্রে শুতে যাবার ঠিক আগে দুধের সাথে মধু মিশিয়ে খান। এতেও খুব ভালো কাজ হয়। ঠিক ঘুমোবার আগেই একটা পুষ্টিকর খাবার খেলে খুব ভালো।

২. বার বার খাবেন না: কি ভাবছেন, বার বার খেলে ওজন বাড়বে? না, বরং উল্টোটা হবে। বার বার একটু একটু করে নয়, যখন খাবেন বেশি করে খান পেট পুরে খান। পেট পুরে খেলে শরীরে মেটাবোলিজম কমবে। যেটা মোটা হবার প্রথম শর্ত। আর ওজন খুব কম হলে, খাবারের পরিমাণ তো একটু বাড়াতেই হবে। যারা বাড়িতে থাকেন, তারা দুপুরে খাওয়ার পর, ১ ঘণ্টা একটু ঘুমিয়ে নিন। যতদিন না ওজন বাড়ছে। এতেও কিছুটা বাড়বে। আর সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে থাকবেন না। এক ঘণ্টার মধ্যেই ব্রেকফাস্ট করুন।

এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয়ক ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি ঠিকানা: – YouTube.com/HealthDoctorBD

৩. ব্যায়াম করুন: স্বাস্থ্যসম্মতভাবে মোটা হতে চান? তাহলে ব্যায়াম করুন। জিমে যান। কিছু কিছু ব্যায়াম ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। যেমন পুশ আপ, ডাম্বল শোল্ডার, যোগাসন, জগিং, বেঞ্চ প্রেস ইত্যাদি। এগুলো রোজ না হলেও সপ্তাহে অন্তত তিনদিন করুন। সুগঠিত পেশীর জন্য এটা দরকার। জিমে গেলে, জিম ট্রেনার আপনাকে সঠিক ট্রেনিং দিয়ে দেবে। সেটা না হলে বাড়িতেই করুন। ব্যায়াম করার পর খিদেও পাবে। বেশি করে খেতে পারবেন। ব্যায়াম করার একঘণ্টা আগে হালকা ব্রেকফাস্ট করে নিন। আর একটু ভারী ব্রেকফাস্ট চাইলে তিন ঘণ্টা আগে করুন। খেতে পারেন টোস্ট, ডিম সেদ্ধ, এক গ্লাস দুধ। বা এক বাটি ওটস।

৪. বেশি করে প্রোটিন ক্যালোরি: খাবারের তালিকায় বেশি করে প্রোটিন, ক্যালোরি যেন থাকে। এর জন্য বেশি করে বাদাম, ফল, মাংস, মাখন, পনির। বিশেষত কাঠ বা কাজু বাদাম খুব ভালো ওজন বাড়াতে। সকালের খাবার তো মোটামুটি বলেই দিলাম। দুপুরে ভাত, তরকারি, ডাল, দই মাছ বা মাংস। ভাত খাওয়া সম্ভব না হলে রুটি চলতে পারে। সন্ধেবেলাও পেট খালি রাখবেন না। এক গ্লাস দুধ বা স্যাণ্ডউইচ। আর রাতে দুপুরের মতই খাবার খেতে হবে। এছাড়াও যতদিন না ওজন বাড়ে, বাড়িতে তৈরি তেলে ভাজা খাবার খেতে পারেন। তবে খুব বেশি না।

৫. ফাস্ট ফুড না: ওজন বাড়াতে খুব ফাস্ট ফুড খাছেন? কিন্তু এটা শরিরের মারাত্মক ক্ষতি করছে। শরিরে খারাপ ফ্যাটের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। চর্বি বেড়ে যায়। তাই শরীরের ক্ষতি করে নয়, স্বাস্থ্যসম্মতভাবে ওজন বাড়ান। তাই রাস্তার ফাস্ট ফুড কম খান। তবে মাঝে মাঝে খাওয়া যেতে পারে। তবে খুব বেশি না।

তাহলে এখন রোগা হওয়া নিয়ে একদম মন খারাপ নয়। আজ থেকেই এই নিয়মগুলো মেনে খাওয়া শুরু করুন। রোগা নিয়ে অযথা টেনশন করবেন না। এগুলো নিয়মিত করুন। ব্যাস, দু’মাস নিজেকে আয়নায় দেখে খুশি হবেনই।

Comments

comments