২৩শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
Uncategorized
ইসলামী জীবন
ঔষধ ও চিকিৎসা
খাদ্য ও পুষ্টি
জানুন
নারীর স্বাস্থ্য
পুরুষের স্বাস্থ্য
ভিডিও
ভেসজ
যৌন স্বাস্থ্য
রান্না বান্না
লাইফ স্টাইল
শিশুর স্বাস্থ্য
সাতকাহন
স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য
স্বাস্থ্য খবর

শিশুর নিউমোনিয়া?

শীত এলেই শিশুদের সর্দি, কাশি, নিউমোনিয়ার মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। অনেক সময় অভিভাবকদের অসচেতনতায় পরিস্থিতি জটিল হয়ে যায় আরও বেশি। সময় মতো চিকিৎসা না করালে অনেক শিশু নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারাও যেতে পারে।

চিকিৎসকরা বলছেন, যেকোনো বয়সে শ্বাসকষ্ট হতে পারে। তবে অন্যদের চেয়ে শিশুদের জন্য এটি অনেক বেশি ভয়ংকর। বাংলাদেশের অনলাইনভিত্তিক ডাক্তার অ্যাপয়েন্টমেন্ট সার্ভিস প্রতিষ্ঠান ডক্টোরোলা ডটকম এর আয়োজনের একটি ফেসবুক লাইভে এ সম্পর্কে বলেন শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ মোহসিনা আক্তার লাকী। তিনি বলেন, ‘অভিভাবকদের বলা হয় বাচ্চার প্রাথমিক ডাক্তার। আমরা তাদের কাছ থেকেই বাচ্চাদের রোগের অর্ধেক তথ্য নিই। তারপর পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে রোগ সম্পর্কে পুরোপুরি নিশ্চিত হই। অভিভাবকদের বাড়তি সতর্কতাই তাই শিশুদের জীবন বাঁচিয়ে দিতে পারে।’

বাচ্চাদের শ্বাসকষ্টের অন্যতম প্রধান কারণ নিউমোনিয়া। আর নিউমোনিয়া হতে পারে বেশ কয়েকটি কারণে। ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া কিংবা ফাঙ্গাসের আক্রমণের কারণে হতে পারে নিউমোনিয়া।শিশুদের এই রোগ থেকে বাঁচাতে কয়েকটি পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। এর মধ্যে রয়েছে- বাচ্চাকে ঠাণ্ডায় না রাখা, পুষ্টিকর খাবার খাওয়ানো, ঘরবাড়ি ধুলাবালি মুক্ত রাখা, হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে গোসল করানো এবং বাচ্চার আশেপাশে ধূমপান না করা। সবকিছুর পরও শিশুকে কোনও কারণে অসুস্থ মনে হলে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন অবশ্যই।

এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয়ক ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি ঠিকানা: – YouTube.com/HealthDoctorBD

 

 

বাচ্চাদের শ্বাসকষ্টের অন্যতম প্রধান কারণ নিউমোনিয়া। আর নিউমোনিয়া হতে পারে বেশ কয়েকটি কারণে। ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া কিংবা ফাঙ্গাসের আক্রমণের কারণে হতে পারে নিউমোনিয়া।শিশুদের এই রোগ থেকে বাঁচাতে কয়েকটি পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। এর মধ্যে রয়েছে- বাচ্চাকে ঠাণ্ডায় না রাখা, পুষ্টিকর খাবার খাওয়ানো, ঘরবাড়ি ধুলাবালি মুক্ত রাখা, হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে গোসল করানো এবং বাচ্চার আশেপাশে ধূমপান না করা। সবকিছুর পরও শিশুকে কোনও কারণে অসুস্থ মনে হলে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন অবশ্যই।

Comments

comments