আমরা সাধারণত কিভাবে হার্ট ভালো রাখা যায়, কিভাবে হার্ট ডিজিজ, হার্ট অ্যাটাক প্রতিরোধ করা যায় এ সব নিয়ে কথা বলি। কিন্তু কখনো কি কল্পনা করা যায় কোনো পরিবারে কারো যদি হার্ট অ্যাটাক হয় এবং সময়মত যদি যথাযথ ব্যবস্থা না নেওয়া যায় তা হলে কি ভয়াবহ বিপর্যয় হতে পারে, তা কেবল কোনো ভুক্তভোগী পরিবারই বুঝতে পারে।

তা ছাড়া আমরা অনেকেই বলি হার্ট অ্যাটাক হয়েছে। অথচ হার্ট অ্যাটাক সম্পর্কে আমাদের অনেকেরই খুব একটা ধারণা আছে কি। উত্তর হবে সম্ভবত না। হার্ট অ্যাটাক হলে হার্টের পেশীতে রক্ত সরবরাহ বাধাগ্রস্ত হয়। ফলে হার্ট মাসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়। হার্টের পেশী কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয় তার ওপর নির্ভর করে কি ধরনের চিকিৎসা নিতে হবে। বিশেষজ্ঞদের মতে, বুকে ব্যথা হলে ব্যথা কমে কিনা তা দেখার অপেক্ষা না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

যদি হার্ট অ্যাটাকের এক ঘন্টার মধ্যে হাসপাতালে নেওয়া যায় তাহলে হার্ট অ্যাটাকজনিত মৃত্যু রোধ করা যায় তিনগুণ বেশি। তাই কারো যদি তীব্র বুকে ব্যথা হয় এবং ব্যথার ধরন যদি চাপ চাপ অনুভূত হয় তা হলে বাসায় না রেখে দ্রুত কোনো চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। সম্ভব হলে কোনো হাসপাতালে নেওয়া ভালো। এতে চিকিৎসক দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন। কোনো অবস্থাতেই তীব্র বুকে ব্যথার রোগীকে বাড়িতে চিকিৎসা দেওয়া ঠিক নয়।

এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয়ক ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি ঠিকানা: – YouTube.com/HealthDoctorBD