বিশেষজ্ঞদের মতে, মধ্যবয়সী নারীদের সুস্বাস্থ্যের জন্য যৌনতা অতি জরুরি বিষয়। ‘মেনোপজ’ জার্নালে প্রকাশিত নতুন এক গবেষণায় দেখা গেছে, ১৩৯০ জন মধ্যবয়সী নারীদের ৭৫ শতাংশের কাছেই নিয়মিত যৌনতা জরুরি বলে মনে হয়।

গবেষণায় বলা হয়, নারীদের মেনোপজ শুরুর প্রায় ২০ মাস আগে থেকে যৌন আকাঙ্ক্ষায় ভাটা পড়ে। মেনোপজের চূড়ান্ত অবস্থার শেষ হওয়ার পর যৌন আকাঙ্ক্ষার অবনতি ঘটতেই থাকে। পরবর্তী ৫ বছর ধরে সেক্সের প্রতি তীব্র অনাগ্রহ দেখা যায় বলে এক প্রতিবেদনে জানায় সাইকি সেন্ট্রাল।

বলা হয়, যে নারীরা হিস্টেরেক্টামিতে আক্রান্ত, তাদের মাঝেও একই সমস্যা দেখা দেয়। নারীদের বয়স বৃদ্ধি বা মেনোপজের কারণে যৌন আকাঙ্ক্ষা কমে আসার বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক রয়েছে।

এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয়ক ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি ঠিকানা: – YouTube.com/HealthDoctorBD

প্রধান গবেষক বলেন, আমাদের গবেষণায় দেখা গেছে নারীদের যৌন আকাঙ্ক্ষার ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে মেনোপজ। এর সঙ্গে জাতিগত বৈশিষ্ট্যরও ভূমিকা রয়েছে।

সাদা চামড়ার নারীদের তুলনায় ভালো অবস্থায় থাকেন আফ্রিকান-আমেরিকানরা। মেনোপজের কারণে তাদের যৌন আকাঙ্ক্ষা খুব বেশি কমে আসে না। আবার জাপানিজদের আকাঙ্ক্ষা উল্লেখযোগ্য হারে কমে আসে। তাই মেনোপজে উপনীত নারীদের স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতন হওয়ার প্রতি গুরুত্বারোপ করে এই গবেষণা। হেলথ ডে জানায়, মেনোপজের পরও যৌন জীবনটাকে উপভোগ্য রাখতে দরকার বিশেষজ্ঞের পরামর্শ।

মেনোপজের সময় যে অবস্থার সৃষ্টি হয় তার মধ্যে রয়েছে, যোনিপথ শুষ্ক হয়ে আসা, বিষণ্নতা ও উদ্বেগ। অবশ্য এগুলো যৌন আকাঙ্ক্ষায় কতটা প্রভাব ফেলে সে বিষয়টি স্পষ্ট নয়।