২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Post Type Selectors
Filter by Categories
Uncategorized
ইসলামী জীবন
ঔষধ ও চিকিৎসা
খাদ্য ও পুষ্টি
জানুন
নারীর স্বাস্থ্য
পুরুষের স্বাস্থ্য
ভিডিও
ভেসজ
যৌন স্বাস্থ্য
রান্না বান্না
লাইফ স্টাইল
শিশুর স্বাস্থ্য
সাতকাহন
স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য
স্বাস্থ্য খবর

পুড়ে যাওয়া ত্বক সারিয়ে তুলুন ঘরোয়া ৫ উপায়ে

রাঁধতে গিয়ে কিংবা অসাবধানতাবশত অনেকের হাত বা শরীরের কোনো অংশ পুড়ে যেতে পারে। পুড়ে যাওয়া অংশে শুরু হয় অসহ্য যন্ত্রণা ও জ্বালাপোড়া। সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা না গেলে কিছুক্ষণের মধ্যে পোড়া স্থানটিতে ফোসকা হতে দেখা দেয়। এইধরনের পোড়ায় ত্বকের উপরের চামড়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ে এবং স্থানটি লাল হয়ে যা। যা ব্যথা করতে থাকে।

এটিকে ফার্স্ট ডিগ্রী বার্ন বলা হয়। পুড়ে যাওয়ার সাথে সাথে যদি ব্যবস্থা নেওয়া হয় তবে এটি দ্রুত সারিয়ে তোলা সম্ভব হয়। পুড়ে যাওয়ার প্রাথমিক কিছু ঘরোয়া উপায় নিয়ে আজকের এই ফিচার।

১। ঠান্ডা পানি
পুড়ে যাওয়া স্থানটি ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি কয়েক মিনিট করুন। এমনকি একটি কাপড় ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে সেটি পোড়া স্থানে লাগাতে পারেন। এটি কয়েক ঘন্টা পর পর ব্যবহার করুন। তবে ভুলেও বরফ ব্যবহার করবেন না। এতে বরফ রক্ত চলাচলে বাঁধা প্রদান করে যার কারণে সংবেদনশীল কিছু টিস্যু ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয়ক ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি ঠিকানা: – YouTube.com/HealthDoctorBD

২। কাঁচা আলু
ত্বকের জ্বালাপোড়া কমাতে আলুর রস বেশ কার্যকর। আলু পাতলা করে কেটে নিন। এটি পোড়া ত্বকের স্থানে ব্যবহার করুন। এছাড়া আলু রস করে নিন। এই আলুর রস স্থানে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট।

৩। অ্যালোভেরা
পুড়ে যাওয়া স্থান নিরাময়ে অ্যালোভেরার চাইতে ভালো আর কোন কিছু হতে পারেনা। এটি ব্যথা কমানোর সাথে সাথে পুড়ে যাওয়া স্থানটিতে দ্রুত চামড়ার বৃদ্ধি নিশ্চিত করে। অ্যালোভেরা অল্প কিছুদিনের মধ্যে আপনার পুড়ে যাওয়া চামড়াটিকে ঠিক আগের মতন করে দিতে পারে। অ্যালোভেরার পাতা কেটে সেটি পোড়া স্থানে ব্যবহার করুন। এক চা চামচ অ্যালোভেরা জেল এবং হলুদের গুঁড়ো মিশিয়েও ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন।

৪। মধু
মধুর অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি উপাদান হাইপারট্রোফিক ক্ষত হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করে। গজ ব্যান্ডেজের উপর কিছু পরিমাণ মধু দিয়ে দিন। এটি পোড়া স্থানে লাগিয়ে রাখুন। দিনে তিন থেকে চারবার এই ব্যান্ডেজ পরিবর্তন করুন।

৫। ভিনেগার
সমপরিমাণ সাদা ভিনেগার বা অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার এবং পানি একসাথে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি পোড়া স্থানে ব্যবহার করুন। এছাড়া একটি কাপড় ভিনেগারে ভিজিয়ে রাখুন। সেটি পোড়া স্থানের উপর ব্যবহার করুন। প্রতি দুই বা তিন ঘন্টা পর পর এই কাপড়টি ব্যবহার করুন।

টিপস:
এছাড়া পোড়া স্থানে সাদা টুথপেস্ট ব্যবহার করতে পারেন।

যেকোনো ধরনের মাখন, পেট্রোলিয়াম জেলি, তেল অথবা ডিমের সাদা অংশ ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

ক্ষত স্থানে চুলকানো থেকে বিরত থাকুন। লক্ষ্য রাখবেন যেনো ইনফেকশন না হয়ে যায়।

Comments

comments